চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

চুল নিয়ে সমস্যা নেই এমন লোক খুব কমেই পাওয়া যাবে। আর চুলের সমস্যার মধ্যে বড় সমস্যা হচ্ছে চুল পড়া। অল্প বয়সে অনেকের মাথার চুল পরে যাচ্ছে। শুধু নারী বললে ভুল হবে। ছেলেদেরও মাথার চুল পড়ে টাক হয়ে যাচ্ছে। এতে ছেলেরা সুন্দর্য হারাচ্ছে। এ থেকে রক্ষা পেতে বাজার থেকে নানা কেমক্যালযুক্ত দ্রব্য এনে ব্যবহার করছেন। কিন্তু এতে আপনার বিপরীত টাই বেশি হচ্ছে। তাই কেমক্যালমুক্ত দ্রব্য প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি প্যাক  পাইকারী ঘর এ পাবেন। যা আপনার ছুল পরা বন্ধ করবে এবং নতুন চুল গজাবে।


তাহলে চলুন যেনে নেই প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি কি কি প্যাক আছে-

নারিকেল তেল, কালোজিরা ও মেথির মিশ্রণ
সমপরিমাপে মেথি এবং কালোজিরা নিয়ে রোদে শুকিয়ে নিবেন। এরপর এগুলো গুড়ো করে নিবেন। এই গুঁড়ো গুলি নারিকেল তেল এর সঙ্গে মিশিয়ে কয়েক মিনিট ফুটিয়ে নিবেন। এরপর এই মিশ্রনটি ঠাণ্ডা হয়ে যায় এরপর এটি একটি কাচের বোতলে রেখে দিবেন। এই মিশ্রনটি ৩ সপ্তাহ ভালো থাকে। তাই এটি ৩ সপ্তাহ ব্যবহার করতে পারবেন।

      নিম পাতার রস
নিম পাতার উপকারিতা আমরা সবাই কম বেশি জানি। নিম পাতার রস চুল পরা বন্ধ করে সেই সাথে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি খুশকি দূর করে এবং চুলের গোড়া শক্ত করে। এ জন্য নিম পাতা নিয়ে পরিস্কার করে পেস্ট করে নিবেন। পেস্ট থেকে যে রস বের হবে সেটি পুরো মাথায় অ্যাপ্লাই করবেন ভালো ভাবে। চুলের গোড়াতে ভালো ভাবে ম্যাসাজ করবেন। এরপর কমপক্ষে ৩০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলবেন। এভাবে সপ্তাহে ৩-৪ দিন করবেন। তাহলেই সমস্যা সমাধান হবে।

        সরিষার তেল
সরিষার তেলে আছে আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড যা চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখে ও কন্ডিশনারের কাজ করে। আর চুল দ্রুত বৃদ্ধি হয়। এছাড়াও সরিষার তেলে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়ামসহ বিভিন্ন মিনারেল ও ভিটামিন আরোও আছে জিঙ্ক, বিটা ক্যারোটিন ও সেলেনিয়াম । যা চুল লম্বা  করতে সাহায্য করে। সরিষার তেলের সাথে লেবুর রস ও ধনিয়া গুঁড়া মিশিয়ে চুলে মাখুন এতে চুল মজবুত ও খুশকিমুক্ত হবে।

  • সিক্রেট হেয়ারঅয়েল

    পরিমান: ২৫০ মিলি ২-৩ মাস ইউজ করা যায়। কাজঃ চুলের প্রায় সকল সমস্যার সমাধান এর…
    Add to cart 1,800.00৳ 

অ্যালোভেরা জেল
অ্যালোভেরা থেকে জেল সংগ্রহ করে পুরো চুলে লাগান একদম আগা থেকে গোঁড়া পর্যন্ত। এরপর ২০ মিনিট রেখে ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল পড়া বন্ধ হবে এবং চুল জ্বলমলে হবে খুব।


      পেঁয়াজের রস
পেঁয়াজের রসের গুনের কথা আমরা কম বেশি সবাই জানি। চুল পড়া বন্ধ করতে  পেঁয়াজের রস খুব ভালো কাজ করে। পেঁয়াজের রস চুলের গোঁড়ায় সরাসরি অ্যাপ্লাই করুন। যাদের পেঁয়াজের রসে গন্ধ হয় তারা এসেনশিয়াল অয়েল পেঁয়াজের রসে মিশিয়ে চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করুন। ২০ মিনিট রেখে এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।


      যে কোন তেল
সপ্তাহে একদিন তুলে তেল ম্যাসাজ করুন। সব ধরনের তেল একসাথে মিশিয়ে চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করুন। তেল দেয়ার আগে সামান্য গরম করে নিবেন। এরপর গরম তোয়ালে দিয়ে পুর মাথা জড়িয়ে নিন। ১৫ মিনিট পুর তোয়ালে খুলে ফেলুন এবং এরপর আরও ১০ মিনিট অপেক্ষা করে শ্যাম্পু করে ফেলুন।


      অলিভ অয়েল, জিরা ও মধু
১ কাপ অলিভ অয়েল এর সাথে ১ চামচ জিরা ৫ ঘন্টার মত ভিজিয়ে রাখুন। এরপর অলিভ অয়েল থেকে জিরা টা ছেঁকে আলাদা করে নিয়ে তেলের সাথে কিছু মধু মিশিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণটি চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করুন। ৩০ মিনিট এভাবে রেখে এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ১ বার ব্যবহার করলে চুল পড়া দ্রুত বন্ধ হবে।

      ডিমের কুসুম ও মধু
একটি পাত্রে দিমের কুসুম নিয়ে ফেটিয়ে নিন। এরপর এর সাথে অল্প পরিমাপে মধু নিয়ে মিশিয়ে একটি মিশ্রন তৈরি করুন। এবার এই মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিন। এভাবে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ছুল পরিস্কার করে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহ ১ বার করলে চুল পড়া বন্ধ হবে। এবং নতুন চুন গজাবে।

 
    চুল পড়া বন্ধের দোয়া
চুল পড়া বন্ধের একটি দোয়া আছে সেটি হচ্ছে, “মুসাল্লামা তুল্লা শিয়াতা ফি-হা(সুরা বাকারাহ আয়াত ৭১)” (আরবি উচ্চারণ বাংলায় লিখলে পুরোপুরি শুদ্ধ হয়না তাই আরবি দেখে নিতে পারেন)। একটি বাটিতে তেল নিয়ে এই দোয়াটি ৩বার পাঠ করে ফু দিবেন, এরপর এই তেল মাথায় মালিশ করবেন। যখন মাথায় তেল দিবেন সেম ভাবে দোয়াটি পাঠ করে দিবেন। এতে আপনার মাথার চুল পড়া কমে যাবে।

এছাড়া আপনি চাইলে এমন কোনো প্রাকৃতিক প্রডাক্ট ব্যবহার করতে পারেন যেটা ব্যবহারে আপনার চুলের সৌন্দার্য ও বৃদ্ধি পাবে চুলকেও অনেক স্ট্রং বা শক্তিশালী করে তোলবে।এক্ষেত্রে আপনি চাইলে আমাদের  সিক্রেট হেয়ার প্যাক  ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এতে রয়েছে নানা প্রকার প্রাকৃতিক উপাদান + ভেষজের মিশ্রন।

এর সাথে আপনি আমাদের সিক্রেট হেয়ার অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।এতে রয়েছে, রেড সেন্ডেলউড, জাতামাংসি, কারি লেভেস, ফেনুগরিক, হিবিসকাস, শিকাকাই, জিভান্টাই, ব্লাকসিড অয়েল, সিসেইম অয়েল, কেস্টার অয়েল, আমান্ড অয়েল এবং আরো ৪২টি জিনিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

fourteen − 7 =